মারায়নতং চূড়ায় অতৃপ্ত সূর্যোদয়: চূড়ায় পদার্পণ

বেশ ছোট একটা পাড়া, এখানে মুরংদের বসবাস। ঘরগুলো টং ঘরের মতো। প্রত্যেকটা ঘরের নিচেই ফাকা জায়গা রয়েছে যেখানে শুকনো কাঠ জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করার জন্য সংরক্ষণ করা হয় এবং গবাদিপশু রাখা হয়। গরু, শুকর, ছাগল দেখলাম আশেপাশে চড়ে বেড়াচ্ছে। পাড়া থেকে উপরের দিকে উঠে যাওয়া শুরু করতেই আকাশের রঙ পরিবর্তন …

Read More »

ঐতিহ্য অন্বেষণে রায়েরকাঠি জমিদার বাড়ি: হারিয়ে যাই ঐতিহ্যে

শেষ বিকালের লাল সূর্যটি জানান দিচ্ছে দিন শেষের আহবান। তবে আমাদের যাত্রার যে শেষ হয়নি। দেখতে দেখতে চলে এলাম রায়ের কাঠি জমিদার বাড়ির অঙ্গনে। সূর্যটাও ছুই ছুই করে জানান দিচ্ছে দিনের শেষের আহবান। তবে এই দিনের শেষের আহবান যে এত বিষণ্ন হবে জানলে আমার পদযুগল পড়তো না এই বাটে। বয়সের …

Read More »

ঐতিহ্য অন্বেষণে রায়েরকাঠি জমিদার বাড়ি: পথের রোমাঞ্চ

পাথরঘাটা সফর শেষে পা যুগল থেমে থাকেনি। আমাদের পলাশ দাদাদের গ্রুপকে বিদায় জানিয়ে আমরা রওনা হয়েছি পিরোজপুরের পথে। উদ্দেশ্য আর কিছু নয় রায়েরকাঠি জমিদার বাড়ি দেখে যাওয়া। সেখান থেকে আমরা চলে যাব বাগেরহাট। পাথরঘাটা যেন এক জনবিচ্ছিন্ন উপজেলা। এখানে বাসও বের হয় মেপে। ফেরির হিসাব আছে। তাই জুম্মার দিনও দুপুর …

Read More »

স্কুল পালানো ছেলের ডায়েরি: গোয়ালদি গ্রামে

তখনকার পানামে ছিল না এত নিরাপত্তা। তাই আজিজ ভাইয়ের ঘর বাড়ির মতই ছিল পানাম নগর। এক কোণার বিল্ডিং নিয়ে গিয়ে তিনি ছলটু ধরালেন। গাজার কটু গন্ধের সাথে পরিচয় আগে কোন দিন ছিল না বিধায় বুঝতে পারলাম না উনি কি করছেন। শুধু বুঝলাম এইটা হয়তো অন্য টাইপের সিগারেট। গুরুজনের সামনে টানায় …

Read More »

স্কুল পালানো ছেলের ডায়েরি: হারিয়ে যাওয়া শহর

তখনও যাত্রাবাড়ি ফ্লাই ওভার হয়নি। চৌরাস্তায় ছিল চতুর্মুখি ফুট ওভার ব্রিজ। খাওয়া পর্ব শেষে বললাম দাদু ভাইকে সোনারগাঁ যাব আমার খালা থাকে সেখানে, কি ভাবে যাব৷ দাদু ভাই হেসে বললেন ওই যে ওপারে গিয়ে দাঁড়াও মোগরাপাড়ার বাস পাবা৷ ওইটা চইড়া যাও৷ মোগড়াপাড়া থেকে তো কাছেই৷ সোনারগাঁয়ে কুন জায়গায় তুমার খালার …

Read More »

স্কুল পালানো ছেলের ডায়েরি: শুরুর গল্প

স্মরণীয় ভ্রমণ বলতে যা বুঝায় সেইটা হয়তো কোন সংজ্ঞায় সংজ্ঞায়িত করতে পারবো না। আমার কাছে সব ভ্রমণই স্মরণীয়৷ কারণ কিছু মানুষ ঘুরে বিশ্বকে দেখতে, জ্ঞান অর্জন করতে৷ তাদের ঘুরার কোন শেষ নেই৷ তারা হয়তো ভোরের ওই ঘাসের ডগায় বিন্দু বিন্দু জমে থাকা শিশির কণার স্থানচ্যুত হয়ে মৃত্তিকার সাথে মিশে যাওয়ার …

Read More »

নড়াইলের পথে ঘাটে: গল্পের হল শেষ

পড়ন্ত বিকালের সোনাঝরা আকাশ সে তো পার হয়েছে কবে। দিনের আলো প্রায় শেষের পথে। আকাশ জুড়ে শুনা যায় সন্ধ্যার আহ্বান। আর একটি নির্ঘুম রাত্রি শেষের গান শুনাবে বলে কি আকাশের এত আয়োজন। আজকে আবার পূর্ণ চন্দ্রিমা। চন্দ্র স্নান না হয় পড়ে করা যাবে। দেরি না করে ভ্যানে চড়ে বসলাম। আমাদের …

Read More »

ঘূর্ণিঝড় নিয়ে মজা করা বন্ধ করুন

১৯৯১ সালের ২৯ এপ্রিল। আমরা থাকি চট্টগ্রামের মাঝির ঘাটে। সকাল থেকেই ঝির-ঝির বৃষ্টি, সাথে মাঝে মাঝে দমকা হাওয়া। আম্মা আর আমি বাসার বাইরে এসে বুঝার চেষ্টা করছি আবহাওয়া কেমন । ইতিমধ্যে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে আঘাত হানতে যাচ্ছে ঘূর্ণিঝড়। দশ নাম্বার মহা বিপদ সংকেত। তার কিছুদিন আগেই একবার ১০ নাম্বার বিপদ …

Read More »

নড়াইলের পথে ঘাটে: বাধাঘাটের বাধা

বের হবার আগে কমপ্লেক্সের সিকিউরিটি গার্ডকে জিজ্ঞেস করলাম বাধাঘাট কিভাবে যাব? সে বললো এভাবে যান। ভাবলাম কাছেই হবে বোধ হয়। চক্কর খেয়ে আবার সেই নিশিনাথ তলার কাছে এসে পড়লাম। খুঁজেছে বাধাঘাট। নৌকা বাইচের জন্য লোকে লোকারণ্য চারদিক আমরাও হারালাম দিক বেদিক। আমি কোথায় খুঁজি তারে, কোথায় তুমি বাধাঘাট। নিশিনাথ তলা …

Read More »

নড়াইলের পথে ঘাটে: সুলতান কমপ্লেক্স

সুলতান কমপ্লেক্স ঢোকার আগেই পথরোধ করে দিল ট্রাফিক। এখানে মেলা আর নৌকা বাইচ দেখার জন্য মানুষের ভিড়ের কারণে রাস্তা বন্ধ রেখেছ। তো বাকিটা পথ পদব্রজেই ভরসা। পদ যুগলদ্বয়কে ভরসা রেখে হাঁটা শুরু করলাম। মূলত বাধা ঘাটকে ঘিরেই নড়াইল শহরের বিনোদন। কিন্তু সেই বাধাঘাটা খুঁজতে গিয়ে যে চৌদ্দ ঘাটের পানি খেতে …

Read More »