টিম বিডিসির ৪৮ ঘন্টায় ১৬০০ কিমি সাইকেল চালানোর বিশ্বরেকর্ড প্রচেষ্টা সম্পন্ন

চারজন সাইক্লিস্টস, কেউই আবার পেশাদার না। সাইক্লিংয়ের জনপ্রিয় গ্রুপ বিডিসাইক্লিস্টসের একটি শাখা টিম বিডিসি। অপেশাদার সাইক্লিস্টসদের প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রতিযোগীতায় নামার মতো সক্ষম করে তোলা তাদের কাজ। এরকম চারজন দ্রাবিড় আলম, তানভীর আহমেদ, রাকিবুল ইসলাম ৪৮ ঘন্টায় রিলে পদ্ধতিতে চালিয়েছেন ১,৬৭০ কিমি, সৃষ্টি করতে যাচ্ছেন নতুন গিনেজ রেকর্ড, এখন অপেক্ষা স্বীকৃতির।

৮ ই ডিসেম্বর রাত ৮ টা ৩৮ মিনিটে শুরু হয় রেকর্ডের প্রচেষ্টা। টানা ৪৮ ঘন্টা রিলে পদ্ধতিতে চালিয়ে ১০ই ডিসেম্বর রাত ৮ টা ৩৮ মিনিটে শেষ হয় চালানো। রেকর্ডের জন্য প্রয়োজন ছিলো অন্তত ১,৫০০ কিমি চালানো, আর টিম বিডিসির ইচ্ছে ছিলো অন্তত ১,৬০০ কিমি চালানো। প্রত্যাশার চেয়ে ৭০ কিমি বেশি চালিয়ে শেষ করতে পারায়, তৃপ্তির হাসি সবার মুখে। যেমনটা চেয়েছিলো, ঠিক তেমনটাই হয়েছে।

গতি আর সামর্থ্যের প্রতিচ্ছবি হয়ে থাকবে এ প্রচেষ্টা ছবি জুয়েল রানা

গিনেজ ওয়ার্ল্ড বুকে আরো একবার নাম উঠেছিলো বিডিসাইক্লিস্টসের। ২০১৬ সালের ১৬ ডিসেম্বর ১,১৮৬ সাইক্লিস্ট নিয়ে সিংগেল লাইনে চালিয়ে তখন তারা গড়েছিলো সবচেয়ে লম্বা চলন্ত সাইকেলের সারি তৈরী করার বিশ্বরেকর্ড। বেশ কয়েকবছর সেটা তাদের দখলে ছিলো। এবারের প্রচেষ্টা ছিলো একেবারেই আলাদা। প্রত্যেক সাইক্লিস্ট একঘন্টা চালিয়ে ব্যাটন তুলে দিয়েছেন পরের জনের হাতে, এভাবেই চারজন পালাক্রমে চালিয়েছেন ১,৬৬৫ কিমি।

 

পূর্বাচলের ২৭ নাম্বার সেক্টরের জয়নুল আবেদিন চত্তর সংলগ্ন ১.৬৬ কিমি রাস্তা বেছে নেয়া হয়েছিলো। রাস্তা জরিপ শেষ করে গিনেজ কর্তৃপক্ষকে পাঠিয়ে আগেই অনুমোদন নেয়া হয়েছিলো। ১,৬০০ কিমি চালানোর জন্য এই চত্তর ঘিরে ৯৪৭ পাক দেবার প্রয়োজন ছিলো। এছাড়া আরো অনেক শর্তের বেড়াজালে আবদ্ধ ছিলো এ প্রচেষ্টা। যেমন, ৬ ক্যামেরায় ধারণ করা ৪৮ ঘন্টার বিরতিহীন সিসিটিভি ফুটেজ থাকতে হবে।

পূর্বাচলে টিমি বিডিসিকে উৎসাহ দিতে হাজির হয়েছিলেন অনেকেই ছবি জুয়েল রানা

২ জন করে নিরপেক্ষ প্রত্যক্ষদর্শী ৪ ঘন্টা এই প্রচেষ্টা পর্যবেক্ষণ করে তাদের মতামত দিবেন। চিপের মাধ্যমে প্রতিটি ল্যাপ রেকর্ড করা হয়েছিলো। এছাড়া জিপিএসতো রয়েছেই।  কোন যান্ত্রিক পরিবহনের পেছনে ড্রাফটিং করা যাবেনা। তবে অন্য সাইক্লিস্টসরা পেসার হিসেবে মূল অংশগ্রহণকারীদের সঙ্গ দিতে পারবে। এজন্য মোটরসাইকেল দিয়ে পথের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার পাশাপাশি নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে পেসাররা সঙ্গি হয়েছিলেন।

এক ফ্রেমে সব প্রতিযোগী ও পেসাররা ছবি লেখক

এ পেসারদের মধ্যে ছিলেন বাংলাদেশের দুজন আয়রন ম্যান শামসুজ্জামান আরাফাত ও ইমতিয়াজ এলাহী। এ ছাড়া টিম বিডিসির আরো অনেকজন পেসারও এই ৪৮ ঘন্টার রিবতিহীন প্রচেষ্টার সঙ্গী ছিলেন। ৮ তারিখ রাতে ভয়াবহ কুয়াশা আর ১০ তারিখের ভোর রাতের বৃষ্টি ভালোই ভুগিয়েছিলো প্রতিযোগীদের। কিন্তু ১০ তারিখের দুপুরের পর থেকে আস্তে আস্তে বাড়তে থাকে গড় গতিবেগ। সন্ধ্যার পর ছোট ১.৬৬ কিমি এর রাস্তায় রীতিমতো আগুন ঝরিয়েছেন তারা।

বাম থেকে রাকিবুল ইসলাম, দ্রাবিড় আলম, মো: আলাউদ্দিন, তানভীর আহমেদ

রাত ৮:৩৮ মিনিটে সমবেত দর্শকদের মুহুর্মুহু করতালির মধ্যে যখন কাউন্ট ডাউন শেষ করা হয় তখন দেখা গেলে আগে থেকে ঠিক করে রাখা ৯৪৭ টি ল্যাপের বিপরীতে চারজনের এ দল ১,০০২ টি ল্যাপ সম্পন্ন করেছেন। এর মধ্যে পাড়ি দিয়েছে ১,৬৬৫ কিমি এর দারুণ ল্যান্ডমার্ক। এখন অপেক্ষা গিনেজ কর্তৃপক্ষের অনুমোদনের। বিডিসাইক্লিস্টসের ধারণা এক মাসের মধ্যেই মিলবে এ স্বীকৃতি। টিম বিডিসির এই বিশ্ব রেকর্ড প্রচেষ্টায় স্পন্সর হিসেবে সাথে ছিলো ডাবর।

আপডেট: এই প্রচেষ্টাটি ইতিমধ্যে গিনেজ রেকর্ড হিসেবে অন্তর্ভূক্ত হয়ে গেছে। লিংক: https://www.guinnessworldrecords.com/world-records/97777-greatest-distance-cycled-in-48-hours-by-a-relay-team

ফিচার ছবি জুয়েল রানা

About Muhammad Hossain Shobuj

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগ থেকে মাস্টার্স শেষ করে পরবর্তীতে আইবিএ থেকে এক্সিকিউটিভ এমবিএ করেছেন। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক একটি উন্নয়ন সংস্থায় কাজ করেন। লেখালেখিটা শখের কাজ, ঘোরাঘুরিও। এ পর্যন্ত দেশের ৬৩ টি জেলা ও ১২ দেশে ঘুরেছেন।

Check Also

বাংলা চ্যানেল সাঁতারে সবার আগে সেন্ট মার্টিন পৌছালেন সাইফুল ইসলাম রাসেল

শৈত্য প্রবাহের পূর্বাভাস ছিলো আগেই। আজ সকাল ১০:৪০ এ  যখন টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপের পশ্চিম সৈকত …

Leave a Reply

Your email address will not be published.