Breaking News

বাংলাদেশ থেকে পর্যটক টানতে ভারতের নানা উদ্যোগ

সড়কপথে ভারতের ট্যুরিস্ট ভিসা খুলে দেবার পর থেকে সারা দেশে ভারতীয় ভিসার আবেনদকেন্দ্রগুলোতে উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে। গত কয়েকদিনে অনেক পর্যটক ভিসার আবেদন করতে যেয়ে ভোগান্তিতে পড়েছেন পর্যটকরা। দুবছরের বেশি সময় সড়কপথে ভিসা বন্ধ থাকা, আসছে ঈদের লম্বা ছুটি, দার্জিলিং-সিকিম ভ্রমণের জন্য আদর্শ সময় এবং দেশের বাইরে কয়েকবছর ঘুরতে না পারা সব কিছু মিলে ভিসা কেন্দ্রে এই ভিড়। এদিকে এই ভিড় সামলাতে অনেকগুলো পদক্ষেপ নিয়েছে ভারতীয় হাইকমিশন।

ভারতীয় ভিসা আবেদনকেন্দ্রগুলোতে রমজানের সময়সূচী অনুসারে সকাল ৯ টা থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত ভিসার আবেদন গ্রহণ ও দুপুর ১টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত পাসপোর্ট ফেরত দেবার কার্যক্রম চলতো। ১৩ই এপ্রিল ২০২২ থেকে এ সময়সূচী বাড়িয়ে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত আবেদনপত্র গ্রহণ করা হচ্ছে। আর বিকেল ৫ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত চলবে পাসপোর্ট ফেরত দেবার কার্যক্রম। ঈদের আগ পর্যন্ত, অর্থ্যাৎ শেষ রোজা পর্যন্ত এ সময়সূচী কার্যকর থাকবে।

যমুনা ফিউচার পার্কে ভারতীয় ভিসা আবেদন কেন্দ্রের সামনে বিশাল লাইন ছবি বাপ্পী জাহিদ

বর্তমানে ভারতের ভিসা আবেদন করলে আবেদনের সাথে সাথে কয়েকটি সেন্টারে বায়োমেট্রিক তথ্য (ছবি ও হাতের আঙ্গুলের ছাপ) দিতে হচ্ছে সময় বেশি লাগছে। ১৩ই এপ্রিল থেকে বায়োমেট্রিক তথ্য প্রদানের কাউন্টার ৫ টি থেকে বাড়িয়ে ১০ টি করা হয়েছে। এছাড়া করোনার সময় চাকরি থেকে বাদ পড়া আগের সব জনবলকে ডেকে পাঠিয়েছে আইভাক। বৃদ্ধি করা হয়েছে সবধরণের কাউন্টারের সংখ্যা। লাইনের শৃঙ্খলা রাখার জন্য অতিরিক্ত পুলিশ ও সিকিউরিটি নিয়োজিত করা হয়েছে। ১৭ ই এপ্রিল ২০২২ ইস্টার সানডে উপলক্ষ্যে ভারতী ভিসার আবেদন কেন্দ্রের পূর্বনির্ধারিত ছুটিও বাতিল করা হয়েছে।

তবে এত কিছুর পরও ভিসার আবেদন কেন্দ্রগুলোতে কমছেনা মানুষের ভিড়। কিছু সুযোগসন্ধানী লোক পরে এসেও বিভিন্ন ধরণের বিশৃঙ্খলা তৈরী করে আগে ঢুকে পড়ছে বলে অভিযোগ করেছেন খুব ভোরে এসে লাইনে দাঁড়ানো পর্যটকরা। এনিয়ে কয়েকদফা মারামারির ঘটনাও ঘটেছে। এছাড়া দালালের মাধ্যমে ২০০০/৩০০০ টাকা খরচ করে অনেক আগে ঢুকে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন ভিসা প্রত্যাশীরা। গত ১৩ই এপ্রিল যমুনা ফিউচার পার্কের ভিসা আবেদন কেন্দ্রে অভিযান চালিয়ে দালাল চক্রের কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে জানিয়েছেন তারা।

চালু হবার অপেক্ষায় আছে ভারত-বাংলাদেশের ট্রেন ছবি সবুজ খান

ভারত বাংলাদেশের মধ্যে চলাচলকারী ট্রেনগুলো করোনা থেকে বন্ধ আছে। এখন সেগুলো চালুরও উদ্যোগ নিয়েছে ভারত ও বাংলাদেশ। ঈদের আগেই এ ট্রেনগুলোর অন্তত দুটি চালু হবার কথা রয়েছে।  এগুলো হচ্ছে ঢাকা-কলকাতা-ঢাকা রুটে মৈত্রী এক্সপ্রেস ও খুলনা-কলকাতা-খুলনা রুটে বন্ধন এক্সপ্রেস। তবে নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশনে ইমিগ্রেশন চালু করতে না পারায় অনিশ্চিত হয়ে আছে ঢাকা-শিলিগুড়ি-ঢাকা রুটের মিতালী এক্সপ্রেস।

কম খরচের ভ্রমণের জন্য সারা বিশ্বে জনপ্রিয় গন্তব্য ভারত। তবে বিগত চার-পাঁচ বছর ধরে ভারত ভ্রমণে সবচেয়ে বেশি পর্যটক যাচ্ছে বাংলাদেশ থেকে। ২০১৯ সালে ২৩ লক্ষ লোক বাংলাদেশ থেকে ভারতে যান, যা ভারতে আসা পর্যটকের শতকরা ২০ ভাগ। কিন্তু ২০২০ সালের ১৫ই মার্চ থেকে করোনার জন্য বন্ধ করে দেয়া হয় ভারতের ভিসা। এরপর গতবছরের নভেম্বরে ট্যুরিস্ট ভিসা দিলেও সেটা শুধুমাত্র বাই এয়ারে দেয়া হয়। গত মার্চের ২৮ তারিখ থেকে বাইরোডে ভারতের ভিসা দেওয়া শুরু হয়। ভারতের ভিসা আবদেনকরার বর্তমান নিয়ম দেখতে এ আর্টিকেলটি পড়তে পারেন।

ফিচার ছবি: লেখক

 

About Muhammad Hossain Shobuj

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগ থেকে মাস্টার্স শেষ করে পরবর্তীতে আইবিএ থেকে এক্সিকিউটিভ এমবিএ করেছেন। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক একটি উন্নয়ন সংস্থায় কাজ করেন। লেখালেখিটা শখের কাজ, ঘোরাঘুরিও। এ পর্যন্ত দেশের ৬৩ টি জেলা ও ১২ দেশে ঘুরেছেন।

Check Also

সিকিমের জিরো পয়েন্ট যেতে পারবেনা বাংলাদেশি পর্যটকরা

২০১৮ সালে সিকিম বাংলাদেশিদের জন্য পুণরায় খুলে দেবার পর থেকে বাংলাদেশের মানুষের অন্যতম পছন্দের গন্তব্য। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.