Breaking News

হানিমুনের এশিয়ার দারুণ সব গন্তব্য

মধুচন্দ্রিমায় যাওয়ার জন্য অনেকেই বেছে নেন বিদেশের গন্তব্যকে। এসব ক্ষেত্রে বিমান ভাড়াটাই সবচেয়ে বড় খরচ হয়ে দাঁড়ায়। এতদিনতো টিকেট কিনেছেন একটি, এখন থেকেতো দুটো টিকেট কেনা লাগবে!  যে কারণে বেশির ভাগ মানুষ দেশের বাইরে হানিমুন করতে চাইলে বেছে নেন এশিয়ার কোন দেশকে। মজার ব্যপার হচ্ছে এশিয়ার এই গন্তব্যগুলো সারা বিশ্বের মানুষের কাছে আরাধ্য হানিমুন ডেস্টিনেশন। এ আর্টিকেলে আলোচনা করবো এশিয়ার দারুণ সব হানিমুন ডেস্টনেশন নিয়ে।

মালদ্বীপ: শুধু এশিয়া না সারা বিশ্বেই হানিমুনের স্বপ্নের গন্তব্য মালদ্বীপ। আমাদের দেশের জন্য সুবিধাটা হচ্ছে বর্তমানে ইউএসবাংলা এয়ারলাইন্স ঢাকা থেকে মালে পর্যন্ত সরাসরি ফ্লাইট পরিচালনা করে। এছাড়া মালদ্বীবিয়ান এয়ারলাইন্স এবং শ্রীলংকান এয়ারলাইন্সও চেন্নাই ও কলম্বো হয়ে মালদ্বীপ যায়। ফলে চাইলেই এশিয়ার ক্ষুদ্রতম এ দ্বীপ রাষ্ট্রে চলে যাওয়া যায় হানিমুন করতে। দিন দিন বাংলাদেশে জনপ্রিয়তা পাচ্ছে মালদ্বীপে হানিমুন।

পৃথীবির অন্যতম সেরা হানিমুনের গন্তব্য মালদ্বীপ ছবি জুনায়েদ

চোখ ধাঁধানো তীব্র নীল আকাশ, ভারত মহাসাগরের পরিস্কার পানি, স্ফটিক স্বচ্ছ সমুদ্র তলদেশ আর সাদা বালির সমুদ্র সৈকত মিলে মালদ্বীপ যে কারো জন্য স্বপ্নের গন্তব্য। তার উপর ভারত মহাসাগরের  এ দেশটিতে রয়েছে অভিজাত সব রিসোর্ট। বিশেষ করে বলতে হয় অগভীর লেগুনের উপর তৈরী করা রিসোর্টগুলো, যার বারান্দা থেকেই সোজা ঝাপ দেয়া যায় সমুদ্রে। এছাড়া হাঙ্গরের সাথে সাঁতার, স্কুবা ডাইভিং, স্নোরকেলিং সব মিলে সারাজীবন মনে রাখার মতো অভিজ্ঞতা দিবে এ দেশটি।

বাজেট, শপিং, সৈকত মিলে দারুণ গন্তব্য থাইল্যান্ড ছবি সাফাত

থাইল্যান্ড: খরচ অন্য দেশের চেয়ে কম আবার দারুণ সব গন্তব্য নিয়ে থাইল্যান্ড এশিয়ার অন্যতম সেরা গন্তব্য। এখানে যেমন রয়েছে ফিফি আইল্যান্ড, কোহ সামুই, পাতায়া, ফুকেটের মতো সমুদ্র সৈকত রয়েছে আবার তেমনি আছে চিয়াংমাইয়ের মতো পাহাড়ি গন্তব্যও। আর শপিংয়ের জন্য ব্যাংকক শহরতো অতূলনীয় বলা যায়। ঢাকা থেকে ব্যাংকক অনেকগুলো বিমান সরাসরি চলে। থাকা, খাওয়া, ঘোরাঘুরি ও শপিং সব দিক মিলে দারুণ মধুচন্দ্রিমার গন্তব্য থাইল্যান্ড।

বালিতে স্বপ্নের হানিমুন ছবি জুনায়েদ

ইন্দোনেশিয়া: হানিমুনের জন্য বালি!  ইন্দোনেশিয়ার এ দ্বীপটি সারা বিশ্বের পর্যটকের কাছে অসম্ভব জনপ্রিয়। বাংলাদেশ থেকে সরাসরি বালি ফ্লাইট না থাকলেও কুয়ালালামপুর বা সিংগাপুর হয়ে বালি চলে যাওয়া যাও। এ দ্বীপের বৈশিষ্ট্য হচ্ছে চাইলে কোটা, সানুর, নুসা পেনিদা, জিমবারানের মতো সব সুন্দর সুন্দর সমুদ্র সৈকতে থাকতে পারেন আবার চাইলে আধ্যাত্মিক পর্যটনের জন্য বিখ্যাত উবুদে চলে যেতে পারেন।

প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও ঐতিহ্য মিলে বালি ছবি উইকিমিডিয়া

এছাড়া বালির আশেপাশে গিলির মতো বেশ কয়েকটি সুন্দর দ্বীপ আছে, ভিড় এড়িয়ে সোজা সেই সব দ্বীপে চলে যেতে পারবেন হানিমুনের জন্য। সাদা বালির বিস্তৃত সৈকত, তানাহলতের সূর্যাস্ত, উলুয়াটুর পাহাড় থেকে সমুদ্র, উবুদের শান্ত পাহাড়, কিন্তামানির আগ্নেয়গিরি, উবুদ রিভার রাফটিং, স্কুবা ডাইবিং, স্নোরকেলিংয়ের মতো দারুণ সব অ্যাডভেঞ্চারে ভরপুর বালি। বর্তমানে অন এরাইভাল ভিসা বন্ধ না থাকলে থাইল্যান্ডের চেয়ে বালিকে এগিয়ে রাখতাম আমরা।

মালেশিয়া-সত্যিকারের এশিয়া ছবি উইকিমিডিয়া

মালেশিয়া: ট্রুলি এশিয়া খ্যাত মালেশিয়াকে অবশ্যই হানিমুনের জন্য অন্যতম সেরা গন্তব্য হিসেবে রাখতে হয়। কুয়ালালামপুরের মতো আধুনিক শহর, যেটা কিনা শপিংয়ের জন্যেও খ্যাত, এটা ছাড়াও মালেশিয়া হচ্ছে দারুণ সব দ্বীপ। এর মধ্যে লাংকাউয়ি সবচেয়ে বিখ্যাত, চাইলে কুয়ালালামপুর এসেই অন্য বিমানে চয়ে যাওয়া যায় পর্যটকদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু এ দ্বীপটিতে। এছাড়া গেন্টিং হাইল্যান্ডের মতো দারুণ পার্বত্য শহরেও।

পর্বত, সৈকত, লেক ও নদীর দেশ শ্রীলংকা ছবি জুনায়েদ

শ্রীলংকা: ভাবছেন দেউলিয়া ঘোষিত এ দেশটি কেন এলো এ তালিকায়। বাস্তবতা হচ্ছে শ্রীলংকা এশিয়ার শীর্ষ হানিমুনের তালিকায় সব সময়ই থাকবে। দেশের অবস্থা যতটা খারাপই হোক না কেন, পর্যটনে তার ছাপ পড়বেনা। বরং অতিথিদের মাথায় করেই রাখে শ্রীলংকার মানুষ। শ্রীলংকার ট্রেনের দৃশ্যের ভাইরাল ভিডিওগুলো দেখেননি এমন মানুষ কম পাওয়া যাবে। আর উনাওয়াতুনা, মিরিস্যা, হিক্কাদুয়া, ওয়েলিগামা সমুদ্র সৈকতগুলোও কিন্তু দারুণ। পর্বত, লেক, সৈকত সব মিলে সারা জীবন মনে রাখার গন্তব্য শ্রীলংকা।

অ্যাডভেঞ্চারপ্রিয় দম্পতিদের পছন্দ নেপলে হানিমুন ছবি সাফাত

নেপাল: হানিমুনে কেন নেপাল যেতে হবে এমন প্রশ্ন করাটাই স্বাভাবিক। হাল আমলের অ্যাডভেঞ্চার প্রিয় তরুণ-তরুণীদের প্রিয় হানিমুন গন্তব্য হয়ে উঠেছে নেপাল। তাইতো দু:সাহসী দম্পতি হানিমুন করতেই চলে যাচ্ছে অন্নপূর্ণা বেইজ ক্যাম্প কিংবা এভারেস্ট বেইজ ক্যাম্পেও। তবে আপনি চাইলে কষ্টকর ট্রেকিং বাদ দিয়েও মধুর হানিমুন করতে পারেন পোখারা ও কাঠমুন্ডুতে। কিংবা মানাং বা বান্দীপুরের কোন ছোট গ্রামেও।

অ্যাডভেঞ্চার, সৈকত, লাক্সারী ও শপিং সব মিলে দারুণ গন্তব্য দুবাই ছবি উইকিমিডিয়া

দুবাই: সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজধানী দুবাই বর্তমানের জনপ্রিয় হানিমুনের গন্তব্য। পৃথীবির সুউচ্চ ভবন বুর্জ আল খলিফাকে কাছে থেকে দেখার সুযোগ রয়েছে এ মরুভূমির শহরটিতেই। এছাড়া দারুণ সব সৈকতের জন্যও বিখ্যাত দুবাই, যার মধ্যে পাম বিচ অন্যতম। মরুভূমির সাফারি নব-দম্পতিকে এনে দিতে পারে আরব্য রজনীর যুগে ফিরে যাওয়ার সুযোগ। আর শপিংয়ের কথা চিন্তা করলে দুবাই সারা বিশ্বের সেরা গন্তব্য বলা যায়।

এরকম দৃশ্য দেখা যায় তুরস্কে ছবি উইকিমিডিয়া

তুরস্ক:  সুলতান সুলেমান সিরিয়ালের জনপ্রিয়তার সাথে সাথে তুরস্কের জনপ্রিয়তাও বেড়েছে  এ দেশে। কিন্তু হানিমুনের গন্তব্য হিসেবে তুরস্ক আগে থেকেই জনপ্রিয়। ঐতিহ্য ও ইতিহাস, দৃষ্টিনন্দন ঐতিহাসিক স্থাপণা, বর্ণীল উৎসব, পর্বত, সমুদ্র, লেক সবকিছু বলে তুরস্কে হতে পারে স্মরণীয় হানিমুন। আর শপিংয়ের কথাতো বলতেই হয়, এশিয়া ও ইউরোপের মিলনস্থল এ দেশটি শপিংয়ের জন্য বিখ্যাত।

প্রেমের সমাধি তাজমহল ছবি উইকিমিডিয়া

ভারত: বিশাল এ দেশটি ঘুরলেই নাকি সারা পৃথিবী ঘুরে আসার স্বাদ পাওয়া যায়। হানিমুনের গন্তব্যে তাই ভারতও আছে মানুষের পছন্দের তালিকায়। সম্রাট শাহজাহানের ভালোবাসা প্রকাশের নিদর্শন তাজমহলে যেতে চান অনেক নব দম্পতি। কেউবা বেছে নেন শিমলা বা কাশ্মীরে মতো পাহাড়ি রাজ্যগুলোকে। আর চাইলে চলে যাওয়া যায় আন্দামান ও নিকোবার দ্বীপপূঞ্জেও। কম খরচে দ্রুত পৌছানোর জন্য দার্জিলিং ও মেঘালয়তো আছেই।

এই পর্যন্ত যদি পড়ে থাকেন এর মধ্যেই আপনি বুঝে ফেলেছেন হানিমুনের বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় গন্তব্যের বেশির ভাগই এশিয়ায়। নিজেদের পছন্দ ও সামর্থ্য অনুযায়ী নতুন দম্পতি তাই এ তালিকা থেকে বেছে নিতে পারেন আপনাদের পছন্দের হানিমুনের গন্তব্য। নানা কারণে বিয়ের পর যাদের হানিমুনটা ঠিকমতো হয়ে উঠেনি তারাও এখন ভেবে দেখতে পারেন, এ তালিকায় থাকা কোন দেশে হানিমুনে যাওয়া যায়।

ফিচার ছবি সাখাওয়াত হোসেন সাফাত

About Muhammad Hossain Shobuj

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগ থেকে মাস্টার্স শেষ করে পরবর্তীতে আইবিএ থেকে এক্সিকিউটিভ এমবিএ করেছেন। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক একটি উন্নয়ন সংস্থায় কাজ করেন। লেখালেখিটা শখের কাজ, ঘোরাঘুরিও। এ পর্যন্ত দেশের ৬৩ টি জেলা ও ১২ দেশে ঘুরেছেন।

Check Also

বাইক নয়, পদ্মা সেতুতে দূর্ঘটনার মূলে ছিলো মাইক্রোবাস!

গত ২৬ জুন ২০২২ ভোর ৬ টায় স্বপ্নের পদ্মা সেতু সর্ব সাধারণের জন্য উন্মুক্ত করে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *